৪ ঘণ্টা ধরে মিলনের পর প্রাক্তন স্বামীকে ছুরিকাঘাত!

68

টানা চার ঘণ্টা ধরে যৌন মিলনের পর প্রাক্তন স্বামীর পেট চিরে অন্ত্র বের করে দিলেন এক পাকিস্থানী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নারী। ক্ষতবিক্ষত অন্ত্রটি কোনোমতে পেটের ভিতর ঢুকিয়ে পালিয়ে গিয়ে প্রাণে বাঁচলেন প্রাক্তন স্বামী। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম শহরে৷

অভিযুক্ত ওই নারীর নাম ডালিয়া সাঈদ (৩৫)। তার প্রাক্তন স্বামীর নাম বিলাল মিয়াঁ (৩১)৷ ২০১৩ সালে দুজনের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর থেকেই তাদের মেয়ে কার কাছে থাকবে তা নিয়ে আদালতে মামলা চলছিল। বিলাল মামলায় জিতে মেয়েকে নিয়ে পাকিস্তানে চলে যেতে পারেন এই আশঙ্কা থেকেই তাকে খুন করার ছক কষেছিলেন ডালিয়া।

পরিকল্পনামাফিক শারীরিক মিলনের প্রস্তাব দিয়ে বিলালকে ডাকেন পাক বংশোদ্ভূত ওই নারী। চার ঘণ্টা ধরে সংগমের পর আচমকা একটি ধারালো ছুরি বিলালের পেটে ঢুকিয়ে দেন ডালিয়া৷ এলোপাথাড়ি কোপানোর পর বিলালের পেট থেকে অন্ত্র-সহ একাধিক অঙ্গ বাইরে বেরিয়ে আসে।

পুলিশকে বিলাল জানিয়েছেন, ডালিয়া ছুরি দিয়ে তার অন্ত্রটি বের করে নিয়ে কার্পেটের উপর ছুড়ে ফেলে দেন। রক্তাক্ত অবস্থাতেই নিজের অন্ত্রটি তুলে পেটের ভিতর ঢুকিয়ে দৌড়ে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যান তিনি। এরপর ডালিয়া রাস্তায় তার উপর কাঠের ব্যাট ও মাংস কাটার ছুরি দিয়েও হামলা চালান। সে সময় এক প্রতিবেশীর বাড়ির বারান্দায় লুকিয়ে ডালিয়ার হাত থেকে রক্ষা পান তিনি।

বার্মিংহামের হাসপাতালে অর্ধমৃত অবস্থায় বিলালকে ভর্তি করা হলে দীর্ঘ চিকিৎসা ও একাধিক অপারেশনের পর ক্রমশ সুস্থ হওয়ার পথে বিলাল।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বিলালের অন্ত্রে ৩০ বার আঘাত করা হয়েছিল। বৈবাহিক ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে ডালিয়ার বিরু‌দ্ধে।

বার্মিংহাম ক্রাউন কোর্টে এই মামলার শুনানির সময় বিলাল বলেন, ‘ঘটনার দিন বিছানার নিচে বা ওর জামার পকেটে ছুরিটি লুকিয়ে রেখেছিল। ডালিয়া আমার পেটে দুবার ছুরির কোপ মারে। পেটের ভিতর থেকে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বের করে নেওয়ার চেষ্টা করছিল সে।’

0 Shares
Share.