শ্বশুরবাড়িতে নির্যাতনে তিন সন্তানসহ গৃহবধূর আত্মহত্যা

0

হায়দরাবাদে স্বামী, শাশুড়ি ও ননদের ধারাবাহিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে চরম পথ বেছে নিলেন এক গৃহবধূ। নিজের তিন সন্তানকে কুয়োয় ফেলে নিজেও ওই কুয়োয় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তেলঙ্গানার সিদেমপেট জেলায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে। মৃত গৃহবধূর নাম গোল্লা মানেম্মা।

পুলিশ সূত্রের খবর, ১৫ বছর আগে কৃষ্ণাইয়া নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল মানেম্মার। শুরু থেকেই মানেম্মাকে পণের দাবিতে নির্যাতন করত তার স্বামী, শাশুড়ি বালাম্মা এবং ননদ অলিভেলু। পণের দাবি ছাড়াও তুচ্ছ কারণেও মানেম্মাকে মারধর করা হতো বলে অভিযোগ।

ছেলে মেয়েরা বড় হয়ে উঠলেও এই নির্যাতন চলতেই থাকে। শুক্রবার সামান্য কারণে মানেম্মার সঙ্গে ঝগড়া বাধে স্বামী, শাশুড়ি ও ননদের। মানেম্মাকে প্রচণ্ড মারধরও করা হয়।

শনিবার সকালে স্বামী কাজে চলে যাওয়ার পর মান্নেমা দুই কন্যা সিন্ধুজা (১২), শ্রীলতা এবং ছেলে অজয়কে (৬) বাড়ির কাছেই একটি কুয়োর কাছে নিয়ে গিয়ে ধাক্কা মেরে ফেলে দেন। পরে নিজেও কুয়োয় ঝাঁপ দেন।

মানেম্মার পরিবারের সন্দেহ, কৃষ্ণাইয়া ও তার মা ও বোনই চারজনকে কুয়োয় ফেলে খুন করেছে। এরপর পুরো ঘটনাকে আত্মহত্যা বলে দাবি করছে। পুলিশ কৃষ্ণাইয়া, বালাম্মা ও অলিভেলুর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা দায়ের করেছে।  নতুনসময়

Share.