না.গঞ্জের কনডেম সেলে ফাঁসির ১২ আসামি

0

নারায়ণগঞ্জে আলোচিত সাত খুন মামলার রায় ঘোষণার পর জেলা কারাগারে দণ্ডপ্রাপ্ত ১৮ আসামিকে রাখা হয়েছে যাদের মধ্যে ১২ জনই মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত। তাদেরকে কারাগারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের জন্য নির্ধারিত কনডেম সেলে রাখা হয়েছে। আর ছয় আসামিকে রাখা হয়েছে বিভিন্ন সেলে।

রায় ঘোষণার পর দুপুরে আনুসাঙ্গিক কাজ শেষে সাত খুনের মামলায় গ্রেফতারকৃত ২৩ আসামির মধ্যে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে ১৮ ও গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে পাঁচজনকে পাঠানো হয়। রায় ঘোষণার আগে এসব কারাগার থেকেই আসামিদের নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হয়েছিল।

কারাগারের জেলার আসাদুর রহমান জানান, দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে ১৮ আসামিকে আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে ১২ জন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ও ছয়জন বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত। আর কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে পাঁচজনকে। তারা হলো নূর হোসেন, র‌্যাবের চাকরিচ্যুত কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর আরিফ হোসেন, লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মাসুদ রানা (এমএম রানা) ও ল্যান্স নায়েক বেলাল হোসেন।

অন্যদিকে, নারায়ণগঞ্জ কারাগারে আছে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে হাবিলদার এমদাদুল হক, আরওজি-১ আরিফ হোসেন, ল্যান্স নায়েক হীরা মিয়া, সিপাহী আবু তৈয়্যব, কনস্টেবল মো. শিহাব উদ্দিন, এসআই পুর্নেন্দ বালা, র‌্যাবের সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, নুর হোসেনের সহযোগী মোর্তুজা জামান চার্চিল, আলী মোহাম্মদ, মিজানুর রহমান দিপু, রহম আলী, আবুল বাশার।

এছাড়া বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন করপোরাল রুহুল আমিন (১০ বছর), এএসআই বজলুর রহমান (৭ বছর), হাবিলদার নাসির উদ্দিন (৭ বছর), এএসআই আবুল কালাম আজাদ (১০ বছর), সৈনিক নুরুজ্জামান (১০ বছর), কনস্টেবল বাবুল হাছান (১০)।

Share.