এ বছর নড়াইলে ধানের বাম্পার ফলন

0

নড়াইলে রোপা আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। আর এতে করে কিছুটা লাভের দেখছেন জেলার কৃষকরা। এখন প্রতিদিন ভোর থেকে শুরু করে রাত অবধি কৃষকরা ধান কাটা, ধান মাড়াই ও পরিষ্কার করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

এ বছর নড়াইলে রোপা আমন ধানের আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। ৩শ’হেক্টর বেশি জমিতে রোপা আমন আবাদ হয়েছে। ৩০ হাজার ৭৭ হেক্টর জমিতে আমনের চাষ করা হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৫ হাজার ৯শ’৪৫ মেট্রিকটন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এ বছর নড়াইলে হাইব্রিড ধান চাষ করা হয়েছে ১ হাজার ৪শ’১২ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৬শ’৬০ মেট্রিকটন। উফশী চাষ করা হয়েছে ২২ হাজার ৩শ’৪৩ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৬০ হাজার ৭শ’২৮ মেট্রিকটন এবং স্থানীয় জাতের চাষ করা হয়েছে ৬ হাজার ৩শ’২২ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ হাজার ৫শ’৫৭ মেট্রিকটন।

জানা যায়, নড়াইল সদর উপজেলায় ১ হাজার ২শ’১০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড আবাদ করা হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার ৯শ’৯৩ মেট্রিকটন। উফশী আবাদ করা হয়েছে ১০ হাজার ৫শ’হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২৮ হাজার ৫শ’৩৯ মেট্রিকটন। স্থানীয়ভাবে ১ হাজার ৮শ’৬০ হেক্টর জমিতে রোপা আবাদ করা হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার ১শ’৬ মেট্রিকটন।

লোহাগড়া উপজেলায় উফশী আবাদ করা হয়েছে ৬ হাজার ২শ’হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ হাজার ৮শ’৫২ মেট্রিকটন। স্থানীয়ভাবে ১ হাজার ২শ’৭২ হেক্টর জমিতে উফশী আবাদ আবাদ করা হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার ১শ’২৪ মেট্রিকটন।

কালিয়া উপজেলায় হাইব্রিড আবাদ করা হয়েছে ২শ’২ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬শ’৬৭ মেট্রিকটন। উফশী আবাদ করা হয়েছে ৫ হাজার ৬শ’৪৩ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার ৩শ’৩৭ মেট্রিকটন। স্থানীয়ভাবে ৩ হাজার একশ’৯০ হেক্টর জমিতে উফশী আবাদ করা হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ হাজার ৩শ’২৭ মেট্রিকটন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বলেন, কৃষি বিভাগের পক্ষ কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা করা হচ্ছে। এ বছর জেলায় রোপা আমনের চাষ লক্ষমাত্রার চেয়ে ৩শ’ হেক্টর জমিতে বেশি আবাদ হয়েছে। জেলায় হাইব্রিড একর প্রতি ৩ দশমিক ৩ মেট্রিকটন, উফশী ২ দশমিক ৭১৮মেট্রিকটন এবং স্থানীয় ১ দশমিক ৬৭ মেট্রিকটন। মোট ৭৫ হাজার ৯শ’৪৫ মেট্রিকটন ধান উৎপাদন হবে।

Share.